মাইলেজ চেক করার নিয়ম ২০২৩ । বাইকের মাইলেজ চেক করার কিছু সহজ উপায়

গাড়ির মাইলেজ টেস্ট করার জন্য বোতলে পেট্রোল বা অকটেন নিয়ে টেস্ট করতে হবে – ০১ লিটার অয়েলে মাইলেজ টেস্ট করতে হয় – মাইলেজ চেক করার নিয়ম ২০২৩

বাইকের মাইলেজ টেস্ট করার নিয়ম ২০২৩ – আমরা অনেকেই নিজের বাইকের মাইলেজ চেক করতে চাই। কিন্তু মাইলেজ চেক করার সহজ উপায় না জানার কারনে আমরা নিজের বাইকের মাইলেজ চেক করতে পারি না। কিন্তু আপনি চাইলে খুব সহজেই বাইকের মাইলেজ চেক করতে পারেন। বাইকের মাইলেজ চেক করার বেশ কিছু পদ্ধতি রয়েছে, তবে এর মধ্যে থেকে সহজ কিছু পদ্ধতি আপনাদের সামনে তুলে ধরা হলো।

বাইকের মাইলেজ চেক করার কিছু সহজ উপায় কি?  যখন আপনার বাইকটি রিজার্ভে এ আসবে তখন ট্রিপ মিটার টি শূন্য করে নিন। এবার ফুয়েল পাম্প এ গিয়ে ১ লিটার ফুয়েল নিয়ে নিন। যতক্ষণ আপনার বাইকটি পুনরায় রিজার্ভ এ না আসবে ততক্ষন চালাতে থাকুন। এবার মিটারের দিকে লক্ষ্য করে দেখুন কত কি.মি চলেছে। একই পদ্ধতি পর পর কয়েকবার অনুসরণ করুন এবং সবগুলি হিসাবের একটি গড় করে দেখুন। তাহলে আপনি পেয়ে যাবেন আপনার বাইকের সঠিক মাইলেজ। এভাবেই আপনি আপনার ট্রিপ মিটার থেকে মাইলেজ এর হিসাব পেতে পারেন।

যদি আপনার বাইকে রিজার্ভ না থাকে তাহলে আপনাকে অন্যভাবে আপনার বাইকের মাইলেজ হিসাব করতে হবে। তার জন্য আপনাকে একটি বোতলে ১ লিটার পেট্রোল নিতে হবে এবং ফুয়েল ট্যাঙ্কটি স্বাভাবিকভাবে খালি হতে দিন। ১লিটার পেট্রোল ভরার পর বর্তমান কিলোমিটার রিডিং(কিলোমিটার ১)করে নিবেন ।

যে পদ্ধতি ব্যবহার করে আপনি বাইকের মাইলেজ চেক করতে পারেন / Bবাইকের মাইলেজ টেস্ট করার উপায়

আপনার সাথে অবশ্যই অতিরিক্ত ফুয়েল রাখতে হবে যাতে ফুয়েল শেষ হয়ে গেলে আপনি বাইকটি আবার চালাতে পারেন। বাইকটি চালিয়ে যখন প্রথম ১ লিটার শেষ হয়ে যাবে এবার কিলোমিটার রিডিং (কিলোমিটার ২) করে নিবেন।

মাইলেজ চেক করার নিয়ম ২০২৩ । বাইকের মাইলেজ চেক করার কিছু সহজ উপায়

এবার ২য় রিডিং আর ১ম রিডিং এর পার্থক্যই হল আপনার মাইলেজ। একই পদ্ধতি কয়েকবার অনুসরণ করার পর সবগুলি হিসাবের একটি গড় করে ফেলুন। আর তাহলেই আপনি আপনার বাইকের সঠিক মাইলেজটি পেয়ে যাবেন। এই মাইলেজ পরীক্ষা যতটা সম্ভব স্বাভাবিক ট্রাফিক থাকা অবস্থায় করার চেষ্টা করুন। উপরের দুটি পদ্ধতি যদি আপনার কাছে জটিল মনে হয় তাহলে আপনার বাইকের ফুয়েল ট্যাঙ্কটি সম্পূর্ণ করুন। এরপর যতক্ষণ পর্যন্ত ফুয়েল শেষ না হয় বাইকটি চালাতে থাকুন। এরপর কত লিটার ফুয়েলে কত কি.মি চললো সেটার হিসাব করে আপনি আপনার বাইকের সঠিক মাইলেজ বের করে নিতে পারেন।

মাইলেজ টেস্ট ২০২৩ । যেভাবে মাইলেজ টেস্ট করবেন

  1. প্রথমত ব্রেকিং পিরিয়ড শেষ করে নিতে হবে।
  2. গাড়ি সব তেল শেষ করে নিতে হবে।
  3. একটি খালি বোতলে এক লিটার পেট্রোল বা অকটেন নিয়ে পাকা রাস্তায় চালিয়ে টেস্ট করতে হবে।
  4. বাইকের মোবিল পরিবর্তন করা থাকতে হবে।
  5. বাইক জ্যাম থাকা যাবে না।
  6. মেইনটিন্যান্স ভাল থাকতে হবে।
  7. বাইকের ফ্রি এবং পেইড সার্ভিসিং গুলো সময় মত করাতে হবে।

মাইলেজ টেস্টের আর কোন উপায় আছে কি?

এছাড়াও আরেকটি পদ্ধতি আছে মাইলেজ চেক করার জন্য,তবে তার জন্য আপনাকে একটু কষ্ট করতে হবে। তরল পদার্থ পরিমাপক এক ধরণের বিশেষ ক্যান পাওয়া যায়। সেটা কিনে নিন, এবং তাতে পরিমান মতো ফুয়েল নিন। তারপর এটিকে ফুয়েল ট্যাঙ্কের পরিবর্তে বাইকের সাথে যুক্ত করুন। এরপর বাইক চালাতে থাকুন, কতটুকু তেলে কত কি.মি অতিক্রম করলো সেটা হিসাব করে আপনি খুব সহজেই আপনার বাইকের মাইলেজ বের করতে পারেন।

তবে একটা ব্যাপার সব সময় মনে রাখবেন বাইকের মাইলেজ আপনার চালানোর উপর অনেক অংশে নির্ভর করে। আপনি কোন রাস্তায় বাইক চালাচ্ছেন আপনার রাইডিং স্টাইল কেমন এই ব্যাপারগুলো আপনার বাইকের মাইলেজে বেশ ভালো প্রভাব ফেলে। তবে আপনি যদি বাইক থেকে ভালো মাইলেজ চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই বাইকের যত্ন নিতে হবে। আর বাইকের মাইলেজ সেই রাস্তায় চেক করার চেষ্টা করুন যেই রাস্তা দিয়ে আপনি সব সময় বাইক নিয়ে চলাচল করে।

admin

I am a web developer who is working as a freelancer. I am living in Tangail, Google SEO is a fantasy to me, I can help you to do your website promote in google first page by SEO Service. You can check me at technicalalamin.com

admin has 427 posts and counting. See all posts by admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *